Sunday, February 25, 2024
No menu items!
Google search engine
Homeসারা বাংলাতিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টোররুমে আগুন

তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টোররুমে আগুন

তিতাস (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ
কুমিল্লার তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টোররুমে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।
গত মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় এ ঘটনা ঘটে।
এ সময় ভয়ে হাসপাতালে ভর্তি রোগী নারী-পুরুষ দিক বেদিক ছুটা-ছুটি করতে থাকে এবং সকলেই হাসপাতালের বাহিরে অবস্থান নেয়।হোমনা ফায়ার সার্ভিসের ইউনিট ঘটনাস্থলে আসার আগেই পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার সরফরাজ হোসেন খানের নেতৃত্বে অগ্নিনির্বাপণ গ্যাস দিয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা এক ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসার পর হোমনা ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে আসেন।হাসপাতালে আগুন লেগেছে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ.টি.এম. মোর্শেদ,সহকারী কমিশনার (ভূমি) আশিক-উর- রহমান, সদর কড়িকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল আলম মুরাদ এবং তিতাস থানা উপপরিদর্শক (এস আই) তপন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে আসেন।আগুনে কি পরিমাণ ওষুধ পুড়েছে জানতে চাইলে পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার সরফরাজ হোসেন খান বলেন, কি পরিমাণ ওষুধ পুড়েছে তা এখন বলা যাবে না, তবে আমরা ২২-২৩ অর্থ বছরে কোনো ওুষধ কিনিনি।উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ. টি.এম.মোর্শেদ বলেন, আমি খবর তাৎক্ষণিক হাসপাতালে যাই, ততক্ষণে আগুন নিয়ন্ত্রণে চলে আসে, কি পরিমাণ ক্ষতি হতে পারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ক্ষতির পরিমাণ না জানালে এ মুহুর্তে বলা যাবেনা।হোমনা ফায়ার সার্ভিস ইউনিটের প্রতিনিধি মো. ওসমান মিয়া বলেন, বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সুত্রপাত।
Previous article
Next article
সময় ঘনিয়ে আসছে জমে উঠেছে সিলেটে ঈদের বাজার আবুল কাশেম রুমন,সিলেট: সিলেটে সময় যথ ঘনিয়ে আসছে তাতে সিলেটের ঈদের বাজার জমিয়ে উঠেছে। ফ্যাশন কিংবা পোশাকে সবসময় উৎসবের রঙ খোঁজেন ক্রেতারা। তাই ডিজাইনে ভিন্নতা আনতে সাধ্যের কমতি নেই সিলেটের ছোট বড় শপিং মহল গুলোতে। এবার রমজানের শুরু থেকেই সিলেটে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা। কম দামে সাশ্রয়ে কিনতে আগ থেকে মধ্যবিত্ত ক্রেতারাও কিনছেন স্বাচ্ছন্দ্যে। রমজানের শুরু থেকে সিলেটের মার্কেট গুলোতে বাড়ানো হয়েছে আলোকসজ্জা। তাতেই বোঝা যাচ্ছে ঘনিয়ে আসছে ঈদ। চারদিকে বইতে শুরু করেছে উৎসবের আমেজ। ঈদ মানেই নতুন পোশাক। ক্রেতা আকর্ষণে এবারও পোশাকে রঙ ও ডিজাইনে ভিন্নতা এনেছে বেশ কয়েকটি শপিং মহল তার মধ্যে অন্যতম এগিয়ে রয়েছে সিলেটের জিন্দাবাজারের প্রাণ কেন্দ্র শুকিরয়া মার্কেট, মেলেনিয়াম, আল হামরা শপিং মহল, তবে বেশি ঈদের উৎসবের ছোঁয়া লেগেছে হাসান মার্কেটে এখানে এসেছে বৈচিত্র্য। প্রতি বছর ক্রেতারা যেমন নতুনত্ব খোঁজেন তেমনি বাজারে নতুন ডিজাইনের পোশাক আনতেও চেষ্টার কমতি রাখে না ফ্যাশন দোকানীরা। এবার পুরুষের পাঞ্জাবিতে যেমন রাখা হয়েছে ঐতিহ্যের মিশেল, তেমনি নারীদের শাড়ি, কামিজ কিংবা থ্রি পিস সবখানেই এসেছে নতুনত্ব। বিক্রেতারা জানান, নববর্ষ এবং ঈদকে মাথায় রেখে এসেছে নতুন কালেকশন। ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী আমরা পোশাক দিতে পারছি। সুতির কাপড় গুলো বেশি বিক্রি হচ্ছে। এবার কাছাকাছি সময়ে একাধিক উৎসব, তাও আবার গরমের মধ্যে। তাই সুতি ও লিলেনের দেশীয় পোশাকে নজর ক্রেতাদের। সারার পণ্য, মান ও দামে সাশ্রয়ী হওয়ায় সব শ্রেণীর মানুষ কেনাকাটা করছেন স্বাচ্ছন্দ্যে। শুধু বড়দের জন্যই নয়, ছোটদের জন্যও রয়েছে অন্য ডিজাইনের কাপড়। সাথে আছে সব বয়সীদের জন্য ঢেউয়ের ওয়েস্টার্ন ড্রেসের বাহারি কালেকশন।
RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments